শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন

দেখার কেউ নেই! সভাপতির অবৈধ ও অনৈতিক হস্তক্ষেপে ঝিমিয়ে পড়েছে বাবুখালী আদর্শ ডিগ্রী কলেজের দৈনন্দিন কার্যক্রম।

দেখার কেউ নেই! সভাপতির অবৈধ ও অনৈতিক হস্তক্ষেপে ঝিমিয়ে পড়েছে বাবুখালী আদর্শ ডিগ্রী কলেজের দৈনন্দিন কার্যক্রম।

অধিকার ডেস্ক:
মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলায় বাবুখালী আদর্শ ডিগ্রী কলেজের সভাপতি মোঃ আলী আহমেদ(মিঞ্জু) এর স্বেচ্ছাচারিতায় কলেজের অধ্যক্ষ, শিক্ষক/কর্মচারী অতিষ্ট। বাবুখালী আদর্শ কলেজটিতে আফতাব উদ্দিন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এসএসসি কেন্দ্রের ভেন্যু হিসেবে হয়ে আসছে। সভাপতি সাহেব এসএসসি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে শিক্ষক/কর্মচারী ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে কলেজে উপস্থিত না হওয়ায় শিক্ষক/কর্মচারীর হাজিরা খাতায় অনুপস্থিত দিয়েছেন। তাছাড়া কলেজের এম,এল,এস,এস মোহাম্মদ ইসহাক আলীকে কারণ দর্শাও নোটিশ প্রদান করে স্বেচ্ছাচারিতার মাত্রা আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন। অধ্যক্ষকে না জানিয়ে তিনি নিজেই মিটিং করার জন্য গভর্নিং বডির সদস্যদেরকে নোটিশ প্রদান করেন।
শিক্ষক/কর্মচারী পূজার ছুটিতে আছেন। অনেক হিন্দু শিক্ষক পূজা নিয়ে ব্যস্ত তারপরও অধ্যক্ষ ব্যতিত শিক্ষকগণকে ০৫/০৯/২০২২ তারিখে বিনা প্রয়োজনে কলেজে হাজির হতে বলেছেন। কলেজের সহকারী অধ্যাপক প্রণব কুমার নাথ ছুটিসহ অধ্যক্ষের অনুমতি নিয়ে তীর্থ ভ্রমণে ভারত গমন করেছেন। তার নামের পাশেও অনুপস্থিত দিয়েছেন। কলেজের ডিগ্রী শাখার নন এমপিও শিক্ষকদেরকে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে এমপিওর জন্য উষ্কে দেন। অথচ এমপিও করার জন্যে কাংখিত ছাত্রছাত্রী নাই। কেবলমাত্র ৭/৮ জন করে ডিগ্রীতে ছাত্রছাত্রী আছে। প্রকাশ থাকে যে বর্তমান সভাপতি মোহাম্মদ আলী আহমেদ মৃধা(মিঞ্জু) ২০১৭ সালের ২২শে ডিসেম্বর কলেজ ভাঙচুর করেছিলেন বিনা উসকানিতে, যা ২৩শে ডিসেম্বর ২০১৭ মানবজমিন পত্রিকাসহ বিভিন্ন পত্রিকায় এই সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছিল। এছাড়াও অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ৭৪/১৮ মামলার ১ নম্বর সাক্ষী হয়ে সাক্ষ্য দিয়েছিলেন। উক্ত মামলায় অধ্যক্ষ মহাদয়কে দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক) নির্দোষ প্রমাণ করেন।
কলেজের অধ্যক্ষ ও শিক্ষকগণ সভাপতির এ হেন আচরণে হাত থেকে রেহায় পাওয়ার জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
অধ্যক্ষকে জিজ্ঞাসা করলে তার অসহায়ত্বের কথা স্বীকার করেন।
এ বিষয়ে কলেজের সভাপতি মোঃ আলী আহমেদ মিঞ্জু কে বার বার ফোন করেও পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্যযে, কলেজ পরিচালনা পর্ষদের ক্ষমতা নেই কোন শিক্ষক হাজিরা খাতায় অনুপস্থিত লেখার।এটি অধ্যক্ষ মহোদয়ের কাজ। সর্বোপরি শিক্ষাঙ্গনের পরিবেশ যদি ভীতিকর পরিস্থিতি বিরাজ করে তাহলে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হবে নিঃসন্দেহে। বিষয়টি ভূক্তভোগীসহ সকলেই দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021
Design & Developed By : JM IT SOLUTION